একটি মাছের ওজন সাড়ে ৩ মনের অধিক, আর দাম পড়বে আনুমানিক ৪ লক্ষাধিক, বিক্রি হচ্ছে কেজি প্রতি সাড়ে তিন হাজার টাকায়, তবে লেজ ও মাথার কাছে মাছ নিলে দাম একটু কম গুনতে হবে, তাও আবার আড়াই হাজার টাকা।
আর সেই মাছ দেখতে উপছে পড়ছে ভীড়, কারন মাছ দেখার জন্য মাইকিং করে নগরবাসীকে আমন্ত্রন জানানো হয়েছে। মাইকে বলা হয়েছে , \’বাগ মাছ, বাগ মাছ, বাগ মাছ! বিশাল বড় বাগ মাছ! বিশাল বড় বাগ মাছটি রাখা হয়েছে নগরীর লালবাজারে! মোটরসাইকেল থাকলে এক টানদি গিয়া দেখিয়া আইওউক্কা। না থাকলে রিকশা একটা লইয়া গিয়া দেখতা পারবা।\’

গত কয়েক মাস আগেও এ বাজারে আরো একটি মাছের জন্য হয়েছিল নগরজুড়ে মাইকিং। মূলত মাছের আকার যখন খুব বড় হয়, তখনই করা হয় এমন প্রচারণা।





মাছের মাইকিং শুনে বুধবার (৪ সেপ্টেম্বর) বিকাল ৪টার দিকে সরেজমিনে নগরীর বন্দর বাজারস্থ লালবাজারে গিয়ে দেখা মেলে বিশালাকার এ বাগাড় মাছের। বাজারে প্রবেশ করেই ডান দিকে দেখা যায় মানুষের ভিড়। প্রচারণা শুনে সবাই এসেছেন মাছটি দেখতে। আর বিক্রেতা মাছটিকে প্রদর্শনীর জন্য রেখেছেন। অনেকেই মাছের সাথে তুলছেন সেলফি। কেউ ফেসবুক লাইভে এসে মাছটির বর্ণনা দিচ্ছেন। মাছটি স্থানীয় জেলেদের কাছ থেকে কিনে বিক্রির জন্য প্রদর্শন করেছেন লালবাজারের ব্যবসায়ী মখলিছুর রহমান ও আনোয়ার হোসেন। আনুমানিক সাড়ে ৩ মণ ওজনের এ মাছটির মূল্য ধরা হয়েছে সাড়ে ৪ লাখ টাকা। মাছ কেজিপ্রতি ৩ হাজার ৫০০ টাকা আর লেজ ও মাথার অংশের কেজিপ্রতি ২ হাজার ৫০০ টাকা নির্ধারণ করে চলছে ক্রেতাদের তালিকা সংগ্রহ। ইতোমধ্যে ৫০ জনের বেশি মানুষ নিজেদের মোবাইল নম্বর দিয়ে নাম তালিকাভুক্ত করে গেছেন।


https://www.dailyjagaran.com/media/imgAll/2019March/Sylhet-Extra-20190904152600.jpg


৪ মণ ওজনের মাছ কিনতে এসেছেন ক্রেতারা

মখলিছুর রহমান ও আনোয়ার হোসেনের সাথে কথা বলে জানা যায়, বুধবার (৪ সেপ্টেম্বর) মাছটি ধরা পড়েছে ফেঞ্চুগঞ্জ উপজেলার কুশিয়ারা নদী থেকে। ভোরবেলা একজন জেলের জালে ধরা পড়ে মাছটি। প্রথমে তিনি মাছটিকে লেজে বেঁধে পানিতেই ভিজিয়ে রাখেন। পরে সকাল ১০টার দিকে মাছটি লালবাজারে এনে বিক্রি করেন জেলে। তখন সর্বোচ্চ দামে তারা দুজন মাছটি কেনেন।
আনোয়ার হোসেন বলেন, আপাতত মাছটি প্রদর্শনীর জন্য রাখা হয়েছে। ইতোমধ্যে বেশ সাড়া পাওয়া যাচ্ছে। আগামীকাল (বৃহস্পতিবার) সকাল ১০টায় মাছটি কেটে কেজি হিসেবেই বিক্রি করা হবে। সূত্র : জাগরন