আনিসুল হক যিনি একজন আইনমন্ত্রী এবং রাজনীতিবিদ। তিনি বাংলাদেশ সরকারের একজন গুরুত্বপূর্ন মন্ত্রী কিন্তু তিনি তার জীবনের একটি অধ্যায়কে সবার নিকট থেকে আ’ড়াল করে রেখেছিলেন। হয়তো তাঁর এই জীবনের গল্পটি অনেকেই জানতেন না। যদিও কিছু লোক এটি অস্পষ্টভাবে শুনেছিল, তবে তারা এটি পরিষ্কারভাবে জানতেন না। বিয়ের তিন বছর পার হতেই, তিনি একটি ম’/র্মা’/ন্তিক গাড়ি দুর্ঘ’টনায় তার স্ত্রীকে হারিয়েছিলেন এবং আর কখনও বিয়ের পিঁড়িতে বসেননি। তার নেই কোনও সন্তান। কিভাবে তার স্ত্রী প্রয়াত হয়েছেন, এবং কেন তিনি আর বিয়ে করলেন না। টেলিভিশনের পর্দায় সেসব কথা তিনি খোলাখুলি বলেছিলেন। আনিসুল হক তার বুকে এমন কষ্ট বয়ে বেড়াচ্ছেন যেটা শুনে শ্রোতারা বা’করু’দ্ধ হয়ে পড়েছেন।
ওই অনুষ্ঠানে উপস্থাপক বলছেন আপনি আইনমন্ত্রী সব কথা জিজ্ঞেস করতেও আপনাকে ভ’/য় লাগে তারপরেও আপনাকে একদম ব্যক্তিগত জীবন নিয়ে কিছু বলতে চান, আপনাকে আমি কোনো প্রশ্ন করবো না। এসময় আনিসুল হক বলেন, আপনি প্রশ্ন করেন কি জানতে চান, আমি বলে দিচ্ছি। ফলে স্বাভাবিকতা বজায় রেখেই নারী উপস্থাপক বলেন, আপনার পারিবারিক জীবন সম্পর্কে জানতে চাই। আমরা কিছুটা জানি, আপনি এরেচেয়ে বেশি জানেন-

আইনমন্ত্রী আনিসুল হক কিছুটা উদাস হলেন। মঞ্চে থেকেই দৃষ্টি কিছুটা উদাস হয়ে যায়। ওপরের দিকে তাকালেন, যেন আসলে তিনি সময়ের দিকে তাকালেন, এবং সময় তাঁকে গ্রহণ করে স্বভাবত তথ্য সরবরাহ করতে শুরু করলো। আইনমন্ত্রী বললেন, ’আমি ১৯৮৭ সালের ডিসেম্বরের ১৮ তারিখে বিয়ে করি। আমার স্ত্রীকে ২ জানুয়ারি ১৯৯১ সালে...’ তারপরে মাথা নিচু করেন কণ্ঠ ভার হয়ে আসে, বাষ্পরুদ্ধ হতে থাকে। কণ্ঠ থেকে নিঃসৃত শব্দমালা কাঁ’পতে থাকে থাকে। তিনি বলেন, ’১ জানুয়ারি অ্যা’কসি/ডেন্ট করেন, কার অ্যা’কসি/ডেন্ট। ২ জানুয়ারি ১৯৯১ সালে, ২ টা ৪৫ মিনিটে ই’ন্তে’কাল করেন।

হয়তো শ্রোতারা খুব অপেক্ষা করে থাকেন, এরপরের গল্পটা কী, আসলেই কি হয়েছিল তারপরে কেননা তিনি একজন আইনমন্ত্রী। মন্ত্রীর অন্ত’রালের জীবনযাপন সম্পর্কে হয়তো অনেকের আগ্রহ থাকে। কেননা তাদের জীবন সহজে তো জানা সম্ভবপর হয়ে ওঠে না। আনিসুল হকের জীবনের গল্পটা এমন নেপথ্যে এমন একটা ম’/র্মা/ন্ত্রিক ঘট’না চা’/পা ছিল তা কে ভাবতে পারবেন? না আনিসুল হক স্ত্রী বিয়োগের পর আর বিয়ে করেননি।

বারবার থেমে যাওয়া কণ্ঠে আইনমন্ত্রী বললেন, এটা ঠিক যে এর পর আমি আর বিয়ে করিনি। এটাও ঠিক যে আমাদের কোন সন্তান-সন্তুতি নেই। আমি তিন বছরে মাত্র ১৪ দিনের জন্য বিবাহিত ছিলাম, এবং সেই আমি এখন একজন বিপত্নীক।

উপস্থাপক একসময় জিজ্ঞেস করলেন, আপনার নিকট জীবনের অর্থ কী? আনিসুল হক স্পষ্টভাবে তার আবেগ মেশানো কণ্ঠে উত্তর দিলেন, জীবনের অর্থ আমার কাছে এখন সেটা তা হলো কিছু করার মাধ্যমে বেঁচে থাকা। স্ত্রীর প্রতি তার যে গভীর ভালোবাসা ছিল সেটা তার কথার পর নেটিজেনদের মনকে স্পর্শ করে গেছে। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাই’রাল হওয়া ক্লিপগুলি যমুনা টেলিভিশন অনুষ্ঠিত ’মন্ত্রী সাহেব’ শিরোনামের একটি অনুষ্ঠানের একটি পর্ব থেকে সংগ্রহ করা।