সৌদি বাদশাহ বলেই কথা, রাজকীয়তা তারই মানায়। আরবের বাদশাহ সালমান বিন আবদুল আজিজ চলতি সপ্তাহে যাওয়ার পরিকল্পনা ইন্দোনেশিয়া সফরে। তবে বাদশাহের সাথে যে পরিমান লাগেজ নিচ্ছেন, সেটা শোনার পর যে কেউ কিছুক্ষন থমকে যাবেন। বাদশাহ সালমানের সংগে যাচ্ছে ৫০৬ টন ওজনের লাগেজ অর্থাৎ তাতে যে জিনিসপত্র থাকবে সেটা ২৪০ টি হাতি বা ৩০০টি গাড়ির ওজনের সমান।
দ্য ওয়াশিংটন পোস্ট সংবাদ মাধ্যমে বলা হয়েছে, গত ৪৬ বছরের মধ্যে এই প্রথম কোনো সৌদি বাদশাহ ইন্দোনেশিয়া সফর করতে যাচ্ছেন। তাই বাদশাহ সালমান পুরো প্রস্তুতি নিয়ে বেরিয়ে পড়ছেন। বিলাসবহুল সামগ্রী ছাড়াও, তিনি এস৬০০ লিমুজিন বেঞ্চের দুটি মার্সিডিজ গাড়িও নিয়ে যাচ্ছেন।

এসব জিনিসপত্র ইন্দোনেশিয়ায় নেয়ার জন্য প্রস্তুত একটি গোটা কার্গো পরিবহন। শুধুমাত্র তার লাগেজ বহনের জন্য কাজ করছে মোট ৫৭২ জন কর্মী। বিষয়টি নিশ্চিত করেছে সৌদি বাদশাহের কার্গো পরিবহনের ব্যবস্থাপক এয়ারফ্রিট কোম্পানি পিটি জাসা অঙ্গাসা সেমেস্তা (জেএএস)।

শুধু লাগেজই নয়, সৌদি প্রিন্সের এই নয় দিনের সফরটি পর্যবেক্ষণ ও নিয়ন্ত্রণের জন্য তার সাথে যাচ্ছেন ১ হাজার ৫০০ জন কর্মকর্তা-কর্মচারী। এর মধ্যে আছেন ১০ জন মন্ত্রী, ২৫ জন প্রিন্স এবং অন্তত ১০০ জন নিরাপত্তার’ক্ষী।

যদিও এটি বর্তমান সময়ে এসে অনেকের নিকট নাটকীয় বিষয় মনে হতে পারে, কিন্তু সৌদি রাজপরিবারের জন্য এই ধরনের রাজকীয় তোড়জোড় নতুন কিছু নয়। এর আগে ২০১৫ সালের দিকে, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের ওয়াশিংটন ডিসি’তে ভ্রমণ করার জন্য সৌদি বাদশাহ সালমান তার সাথে যাওয়া কর্মীদের থাকার জন্য ২২২ রুম বিশিষ্ট একটি সম্পূর্ণ হোটেল কিনে নিয়েছিলেন। সৌদি রাজপরিবারের এই ধরনের কর্মকান্ড সবাইকে অবা’ক করলে তাদের দিক থেকে এটি খুবই স্বাভাবিক বিষয়।