বর্তমান দেশে নারী-পুরুষ সবাই ঘরের বাহিরে কাজ করে। নারীদের বাহিরে কাজ করে এসে তাদের আবার ঘরও সামলাতে হয়। রান্না করা একটা আবশ্যক কাজ। কিন্তু রান্নার কথাটা শুনতে যত সহজ লাগে, করতে ততটাই কঠিন।

রান্না ঘর থেকে যত দ্রুত বের হওয়া যাবে ততই মঙ্গল। তাই দ্রুত রান্না সারতে কিছু সহজ টিপস আছে যেগুলো করলে সহজেই রান্নার কাজ শেষ হয়ে যাবে। সেগুলো একুশে টেলিভিশন অনলাইনের পাঠকদের জন্য দেওয়া হলো-

১) মাছ ভাজার সময় তেল ছিটকে গায়ে পড়ে, এ সময় একটু লবণ ছড়িয়ে দিন। তাহলে দেখবেন তেল আর ছিটকাবে না।

২) পেঁয়াজ বেরেস্তা করার সময় পেঁয়াজ ভেজে নামানোর আগে সামান্য পানি ছিটিয়ে দিলে তাড়াতাড়ি লালচে হবে।

৩) ডাল তাড়াতাড়ি রান্না করতে চাইলে বা সেদ্ধ করতে চাইলে সেটি আগের রাতেই ভিজিয়ে রাখুন। আগের রাতে ভিজে রাখলে ডাল কিছুটা নরম হয়ে যায় এবং তাড়াতাড়ি সেদ্ধ হয়ে যায়।

৪) অনেক সময় মুরগির মাংস কিংবা ছাগলের মাংস রান্না করার পরও গন্ধ থেকে যায়। এই গন্ধ দূর করতে চাইলে রান্না করার সময় এক টেবিল চামচ ভিনেগার দিন। এতে যেমন গন্ধ থাকবে না তেমনি তাড়াতাড়ি সেদ্ধও হবে।

৫) আপনার রান্না করার মসলা বিভিন্ন কৌটায় রাখতে হয়। রান্না করার সময় কোন কৌটায় কোন মসলা থাকে ভুলে যান। এতে রান্নার দেরি হয়ে যায়। তাই কৌটার গায়ে মসলার নাম লিখে রাখুন। তাহলে সহজেই খুঁজে পাবেন।

৬) কাঁচা মাছ বা মাংস ছুরি দিয়ে কাটতে চাইলে আগে বেশ কিছুক্ষণ সেগুলো পানিতে ভিজিয়ে নরমাল করে নিতে হবে। এতে সহজেই কেটে নিতে পারবেন।

৭) অনেক সময় তাড়াতাড়ি রান্না করতে গিয়ে তরকারিতে লবণ বেশি হয়ে যায়, তখন দুইটি আলু কেটে দিলে ঠিক হয়ে যাবে।

৮) ফ্রিজে রাখা মাছ বা মাংস রান্না করতে চাইলে রান্না করার আধা ঘণ্টা আগে ফ্রিজ থেকে বের করে পানিতে ভিজিয়ে রাখতে হবে।

৯) ঢেঁড়স পিচ্ছিল হওয়ায় এটি রান্না করতে অনেক সময় নষ্ট হয়। তাই ঢেঁড়স রান্না করার সময় এক চামচ লেবুর রস দিলে এই সমস্যা দূর হয়ে যাবে।

১০) আলু বা ডিম সিদ্ধ করার সময় পানিতে এক চিমটি লবণ দিয়ে দিন। দেখবেন তাড়াতাড়ি সেদ্ধও হয়ে গেছে এবং ডিমের খোসা, আলুর ছাল সহজেই উঠে আসবে।

সূত্র : রান্নাবান্না।

News Page Below Ad