’এ এক পৃথিবীর দুর্লভ ঘটনা, পৃথিবীর সবচেয়ে সুখী বাবা-মা। ছেলেকে প্রধান বিচারপতি হিসেবে শপথ নিতে দেখা এ এক অত্যাশ্চর্য ঘটনা।’
শনিবার (০৩ ফেব্রুয়ারি) সামাজিক যোগাযোগ সাইট ফেসবুকে কয়েকটি স্থিরচিত্রসহ এমন স্ট্যাটাস দিয়েছেন সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতির কার্যনির্বাহী কমিটির সদস্য অ্যাডভোকেট কুমার দেবুল দে।

স্ট্যাটাসে তিনি আরও বলেন, ’ছবিটা যখন তুলতে গেলাম ঠিক সেই মুহুর্তে বিচারপতিরা এক প্রকার আমাকে অনুরোধ করেই পেছনে দাঁড়িয়ে এ ছবির অংশ হতে চাইলেন। হুইল চেয়ারে বসা দুইজনই আমাদের নবনিযুক্ত প্রধান বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেনের বাবা-মা।’

পরে বাংলানিউজের পক্ষ থেকে যোগাযোগ করা হলে কুমার দেবুল দে বলেন, ’সুপ্রিম কোর্ট বারের কার্যনির্বাহী কমিটির সদস্য হিসেবে নতুন প্রধান বিচারপতির শপথ অনুষ্ঠানে আমন্ত্রণ পেয়ে শনিবার বঙ্গভবন গেলাম। সেখানেই গিয়ে দেখি হুইল চেয়ারে করে দুইজন বসা। জানতে পারলাম তারা নবনিযুক্ত প্রধান বিচারপতিরই বাবা-মা।’

’এরপর এগিয়ে গিয়ে কথা বললাম। ছবি তুললাম। ছবি তোলার সময় সুপ্রিম কোর্টের কয়েকজন বিচারকও এগিয়ে এলেন। ওনারাও ছবির অংশ হলেন।’

কি কথা হলো তাদের সঙ্গে এমন প্রশ্নে কুমার দেবুল দে বলেন, ’প্রধান বিচারপতির বাবা এখনো কুমিল্লা কোর্টের আইনজীবী। তিনি আমাকে বলেছেন, এটা একটা পুরস্কার। প্রধান বিচারপতি হিসেবে ছেলের শপথ অনুষ্ঠানে অংশ নিয়েছি। এর চেয়ে গর্বের আর কি হতে পারে।’

সুপ্রিম কোর্টের ওয়েবসাইটের তথ্য মতে, প্রধান বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেনের বাবার নাম সৈয়দ মোস্তফা আলী। মাতার নাম বেগম কাওসার জাহান।

শুক্রবার (০২ ফেব্রুয়ারি) দুপুরে আপিল বিভাগের বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেনকে নতুন প্রধান বিচারপতি হিসেবে নিয়োগ দেন রাষ্ট্রপতি।

শনিবার সন্ধ্যায় ২২তম প্রধান বিচারপতি হিসেবে শপথ তিনি। বঙ্গভবনে তাকে শপথবাক্য পাঠ করান রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ।

শপথ অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা, সাবেক প্রধান বিচারপতিদের কয়েকজন, মন্ত্রী পরিষদের সদস্যরা, সুপ্রিম কোর্টের বিচারপতিরা, জ্যেষ্ঠ আইনজীবী, সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতির নেতারাসহ পদস্থ কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন