রাজপথে আপনাকে আজ অসহায় অবস্থায় দেখছি। দেখলাম আপনি আপ্রাণ চেষ্টা করছেন দলের এক ছাত্র নেতাকে পুলিশের হাত থেকে রক্ষা করতে। কিন্তু পারেননি। উল্টো আপনি ধস্তাধস্তির শিকার হলেন। আপনি রাস্তায় পড়ে গেলেন। এটা অত্যন্ত অপমানকর একটা ঘটনা। কিন্তু এতে আপনার সম্মানহানি হয়নি। আপনার প্রতি মানুষের সম্মান বেড়েছে। যারা এই কাজ করেছে তারা ঘৃণিত হয়েছে।
২০১৪ সালে নির্বাচনে অংশ নিলে আপনার দল হয়তো ক্ষমতায় থাকতো। আপনি হতে পারতেন একজন দাপুটে মন্ত্রী। আপনিও আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদেরের মতো নানা রকম বাণী জাতিকে শোনাতে পারতেন। কিন্তু আজ আপনি জনপ্রিয় বড়ো দলের মহাসচিব হয়েও নিগ্রহের শিকার হলেন। আজ আপনাকে রাজপথে এই অসহায় বিধ্বস্ত চেহারায় যারা দেখেছে, আমার বিশ্বাস দল মত নির্বিশেষে প্রতিটা বিবেকবান মানুষের হৃদয়কে নাড়া দিয়েছে। আপনি ক্ষমতায় না থাকতে পারেন, কিন্তু আপনার সাথে এমন অসৌজন্যমূলক আচরণ করার অধিকার রাষ্ট্র কাউকে দেয়নি।
বিএনপির রাজনীতির সাথে আমার মতপার্থক্য আছে, কিন্তু তাই বলে ভিন্ন মতের কেউ অপমানিত হবে এটা কাম্য হতে পারে না। আর যেভাবে আপনার কাছ থেকে টেনে হেঁচড়ে জামা কাপড় ছিঁড়ে গাড়িতে তোলা হলো সেটা মনে হচ্ছে কোন দলীয় নেতা-কর্মী না, ছিনতাইকারী বা পকেটমার। এর আগেও যুবদল নেতা মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল ও স্বেচ্ছাসেবক দলের সভাপতি শফিউল বারী বাবুকে একই অপমানজনক ভাবে আটক করা হয়েছে। বিরোধী রাজনীতি করা মানে যেনো একটা অপরাধ, সেটাই প্রমান করা হচ্ছে। আর এসব কাজে ব্যবহার করা হচ্ছে জনগনের টাকা প্রতিপালিত পুলিশ বাহিনীকে।
তারপরও বলবো ফখরুল ভাই ধৈর্য হারাবেন না। গণতান্ত্রিক রাজনীতিতে অবিচল থাকুন। বাংলাদেশে মুক্তিযুদ্ধের মধ্য দিয়ে যে দেশটি গড়ে উঠেছে তার মূল ভিত্তি হচ্ছে গণতন্ত্র। সেই গনতন্ত্রের পথেই চলতে থাকুন। তাই যারা আপনাকে রাজপথে অপমনিত করেছে তাদেরকে করুণা করুন। আপনার সম্মান ভুলুন্ঠিত হয়নি। আপনাট সম্মান নষ্ট হয়নি। আর একটি ঘটনা আপনাকে মনে করিয়ে দেই। আফ্রিকার কালো মানুষদের অবিসংবাদিত নেতা নেলসন ম্যান্ডেলা দীর্ঘ সংগ্রামের পর যখন ক্ষমতায় আসেন, তখন জাতির উদ্দেশ্যে প্রথম ভাষণে বলেছেন, তার প্রধান কাজ হচ্ছে সব বর্ণের মানুষের সমান অধিকার নিশ্চিত করা। ভাবুন একবার। বর্ণবাদী শ্বেতাঙ্গদের হাতে কয়েক যুগ নিপীড়িত হয়েছে কালোরা। কিন্তু সেই কালোদের নেতা ক্ষমতায় এসে সাদাদের রক্ষার চেষ্টা করছে। এটাই মানবতা। এটাই গণতন্ত্র।
তাই কখনো যদি ক্ষমতায় যান তাহলে মানবতা ও গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠা করে প্রতিপক্ষকে শিক্ষা দেয়ার শপথ নিন। এখন যেসব ঘটনা ঘটছে তার থেকে দীক্ষা নিন। আপনাকে শ্রদ্ধা ও সালাম জানাই।
আপনাকে সালাম।
সিনিয়র সাংবাদিক সাংবাদিক মোস্তফা ফিরোজ দিপুর ফেসবুক থেকে সংগ্রহীত
             

News Page Below Ad