১৯ বছর বয়সী ভারতীয় বংশোদ্ভুত পিজে লাখানপাল মরণব্যাধি ক্যান্সারে আক্রান্ত। তার জীবনের শেষইচ্ছা হলো একদিনের জন্য কানাডার প্রধানমন্ত্রী হওয়া!


নাহ এটা কোন বলিউড সিনেমার কাহিনী না। পিজে লাখানপাল কানাডার সবচেয়ে ক্ষমতাধর মানুষের চেয়ারে একদিনের জন্য বসেছিলেন। আড়াই বছর আগে লাখানপাল এই ইচ্ছার কথা ব্যক্ত করেন এবং \’মেইক এ উইশ কানাডা\’ কে জানায়। \’মেইক এ উইশ কানাডা\’ নামের এক সংগঠন মৃত্যুপথযাত্রী কানাডীয় শিশুদের জীবনের শেষ ইচ্ছা পুরণে সহায়তা করে থাকে। তারা লাখানপালের জীবনের শেষ ইচ্ছা পূরণ করতে সচেষ্ট হয়।


এই ছবিটা কানাডার প্রধানমন্ত্রী নিজের অফিসে তোলেন এবং নিজের টুউটার একাউন্টে পোস্ট করেন।


নিজের শেষ ইচ্ছা পুরণ হতে সময় নিয়েছে ২.৫ বছর কিন্তু তাও লাখানপাল খুবই খুশি! সিটিভি নিউজকে জানানো এক সাক্ষাতকারে সে জানায় প্রধানমন্ত্রী হয়ে তার প্রথম কাজ হবে দেশের অর্থনীতিকে আরো গতিশীল করা।


লাখানপালের শপথ অনুষ্ঠান হয়, সে কর্মকর্তাদের সাথে আলোচনা করেন এবং সাংবাদিকদের সাথে মতবিনিময় করেন। সব মিলিয়ে তার দিনটি ছিলো বেশ কর্মব্যস্ত! কানাডার গভর্নর জেনারেল জানান একদিনের জন্য লাখানপালকে পেয়ে তারা বেশ খুশি।



প্রধানমন্ত্রী হওয়া তাও আবার কানাডার মত এক দেশের বেশ কঠিন কাজ কিন্তু সে এই কাজ বেশ দক্ষতার সাথে সম্পন্ন করেছে। সে বলে, \’আমি ক্যান্সারের সাথে লড়াই করছি এর চেয়ে কঠিন কাজ আর কি হতে পারে? তাই আমি ভবিষতে যেকোন বড় কাজ সামাল দিতে প্রস্তুত!\’

Category : অন্যান্য

News Page Below Ad