মাননী প্রধানমন্ত্রী, আপনি বয়সে আমার চেয়ে ছোট। তাই নাম বিকৃত করবেন না। জনগণও এটা পছন্দ করে না।’ বলে বলেছেন বিকল্পধারার চেয়ারম্যান ও সাবেক রাষ্ট্রপতি এ কিউ এম বদরুদ্দোজা চৌধুরী।
আজ শুক্রবার সন্ধ্যা সাড়ে ছয়টায় বিকল্প স্বেচ্ছাসেবকধারার উদ্যোগে রাজধানীর পুরানা পল্টনের একটি হোটেলে এক আলোচনা সভা ও ইফতার মাহফিলে বিকল্পধারার চেয়ারম্যান বদরুদ্দোজা চৌধুরী এসব কথা বলেন।
তিনি বলেন ’আমার নাম বদরুদ্দোজা। এর অর্থ হচ্ছে, ঘোর অন্ধকারে উজ্জ্বল পূর্ণ চন্দ্র। এই নামটিকে বিকৃত করে (অমুক কাকা) বলা সমীচীন হয়নি। এই নামটিকে ছোট করা উচিত না।’
বদরুদ্দোজা চৌধুরী বলেন, ’বদরুদ্দোজা নামটি আমাদের প্রিয় রাসুলের একটি সুন্দর পদবি। এই নামটি আমার নানা আমার জন্য রেখেছিলেন। পবিত্র কোরআনুল করিমে নাম বিকৃতির বিরুদ্ধে কঠোর হুঁশিয়ারি দেওয়া হয়েছে। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী এটা স্মরণে রাখলে কৃতজ্ঞ থাকব। প্রধানমন্ত্রী, আপনি বয়সে আমার চেয়ে ছোট। তাই নাম বিকৃত করবেন না। জনগণও এটা পছন্দ করে না।’
উল্লেখ্য, গত বুধবার (৩০ মে) ভারত সফর নিয়ে গণভবনে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনের প্রশ্নোত্তর পর্বে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বদরুদ্দোজা চৌধুরীকে ’বদু কাকা’ বলে সম্বোধন করেছিলেন।
তত্ত্বাবধায়ক সরকার বিল এ কিউ এম বদরুদ্দোজা চৌধুরী বলেন, ’প্রধানমন্ত্রী নির্বাচন নিয়ে বিভিন্ন কথা বলেছেন। শুধু আওয়ামী লীগের দাবিকৃত (পরবর্তী সময়ে আমার সমর্থিত) তত্ত্বাবধায়ক সরকার বিল পাস করার প্রয়োজনে তাড়াহুড়া করে ১৯৯৬ সালের ১৫ ফেব্রুয়ারি ষষ্ঠ জাতীয় সংসদ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়েছিল। তা না হলে দেশে রাজনৈতিক সংকট সৃষ্টি হতো। ওই সময়ে আমার দল বিএনপি নির্বাচনকে পাঁচ বছর ক্ষমতায় থাকার জন্য ব্যবহার করে নাই।’
আলোচনা সভায় প্রধানমন্ত্রীর ভারত সফর সম্পর্কে বদরুদ্দোজা চৌধুরী বলেন, ’প্রধানমন্ত্রী, আপনি বড় গলায় বলেছেন, ভারতকে যা দিয়েছি, সারা জীবন মনে রাখবে। সাধারণ মানুষের মনে প্রশ্ন জেগেছে, কী দিয়েছেন? আপনি যখন দিয়েছেন, আপনিই তো জানেন, আর ভারত জানে, আমরা জানি না।’ তিনি আরও বলেন, কী কী নিলাম, এটা তো শোনা যায় না। তিস্তার পানি কই? মানুষ তো জানতে চায়।
তিনি আরো বলেন, ’জামাই আদরের বিরোধী দল এটা। অ্যাঁ, মুরগির রানটা দাও, রুই মাছের মাথাটা দাও। খালি সরকারকে তেলই মারছে বিরোধী দল। এগুলো ঠিক না। আমরা বাংলাদেশে আইনের শাসন চাই।’

News Page Below Ad